মেনু নির্বাচন করুন
পাতা

খাল ও নদী

নদ-নদী: ঘোড়শাল ইউপিতে কোনপ্রকার নদী নেই কিন্তু ছোটখাট অনেক খাল রয়েছে।  নদী ভাঙ্গনের ফলে কখনো কখনো উক্ত নদী গুলোর বিভিন্ন পরিবর্তন হয়ে থাকে। 

 

দী ভাঙ্গন

নদী ভাঙ্গন বাংলাদেশের একটি নিয়মিত দূর্যোগ। নদী ভাঙ্গনে ক্ষয়ক্ষতি ধীরে ধীরে হলেও অন্যান্য আকস্মিক ও প্রলয়ঙ্করী দূর্যোগ অপেক্ষা অধিক ধংসাত্মক ও সুদূর প্রসারী। 

 

  • নদী ভাঙ্গনের কারণঃ প্রাকৃতিক 
  • নদী ভাঙ্গনের কারণঃ মানবসৃষ্ট 
  • সমাজ জীবনে নদী ভাঙ্গনের ফলাফল
  • সম্ভাব্য নদীভাঙ্গন মোকাবেলায় প্রস্ত্ততিসমূহ
  • নদী ভাঙ্গন সম্পর্কে যা জানা দরকার

  

নদী ভাঙ্গনের কারণঃ প্রাকৃতিক 

  • বাংলাদেশ একটি পলি গঠিত বদ্বীপ ভূমি হওয়ায় এখানকার ভূমি নদীর পানির ধাক্কায় বা সামান্য তোড়ে অতি সহজেই ভেঙ্গে যায়।
  • মাটির গঠন দুর্বল বিধায় সামান্য চাপ বা আঘাতে নদীর পাড়ে ভাঙ্গন হয়ে থাকে।
  • দেশের উত্তর ও উত্তর-পূর্বাঞ্চলে অকস্মাৎ বন্যার প্রভাবে অতি দ্রুত গতির বা আকস্মিক নদী ভাঙ্গন হয়ে থাকে।
  • বর্ষাকালে বা বন্যার সময় নদীতে পানির পরিমান বৃদ্ধি পায়, ফলে বর্ধিত পানির চাপে নদীর পাড়ে ভাঙ্গন হয়ে থাকে।
  • ঢেউয়ের আঘাতেও অনেক সময় নদীর পাড়ে ভাঙ্গন হয়ে থাকে।
  • যেখানে যেখানে নদী তার গতিপথ পরিবর্তন করেছে, সেখানে সৃষ্ট বাঁকে নদী ভাঙ্গন হয়ে থাকে।
  • নদী অনেক শাখায় বিভক্ত হয়ে গেলে, মধ্যস্থিত চরসমূহের পাড়ে ভাঙ্গন হয়ে থাকে।
  • নদীর আকারও ভাঙ্গনের একটি কারণ, কেননা বড় নদীতে ভাঙ্গন বেশী হয়।
  • নদীর পাড়ে নিচের দিকে অবস্থিত নরম পলি মাটি পানির ধাক্কায় ধাক্কায় গলে যাবার ফলে নিচের দিকে ফাঁপা সৃষ্টি হয় এবং উপরের শক্ত মাটি প্রথমে ধ্বসে গিয়ে পরে ভেঙ্গে পড়ে।
  • নদী ভরাট হয়ে যাবার কারণে পানি বৃদ্ধির সময় পাড়ের উপর অতিরিক্ত চাপ সৃষ্টি হয় এবং পাড় ভাঙ্গতে থাকে।
  • নদীতে জোয়ার-ভাটার কারণে সৃষ্ট পানি চলাচলের প্রভাবে ভাঙ্গন হয়ে থাকে।
  • নদীতে নতুন চর সৃষ্টি বা অন্য কোন প্রাকৃতিক কারণে নদীর স্বাভাবিক গতিপথে প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি হলে ভাঙ্গন হয়ে থাকে।
  • নদীর পানি বৃদ্ধির সাথে সাথে স্রোত বৃদ্ধি পেলে পানিতে যে বলয় বা গোলা সৃষ্টি হয় তার প্রভাবেও নদী ভাঙ্গন হয়ে থাকে।
  • অতিরিক্ত বৃষ্টিপাতের ফলেও অনেক সময় নদীতে ভাঙ্গন হয়ে থাকে।
1River Erosion.jpg  2River Erosion.jpg

বির টাইটেল:বর্ষাকালে নদীতে তীব্র স্রোত  

ছবির টাইটেল: হঠাৎ বন্যায় নদী ভাঙ্গন  
 3River Erosion.jpg  4River Erosion.jpg

ছবির টাইটেল: নদীর পাড়ে ঢেউয়ের আঘাত  

ছবির টাইটেল: নদীর বাঁকে ভাঙ্গন
 5River Erosion.jpg  6River Erosion.jpg
ছবির টাইটেল: চরে ভাঙ্গন  ছবির টাইটেল: নদীর পানিতে তৈরি হওয়া বলয় বা গোলা 
   

 

নদী ভাঙ্গনের কারণঃ মানবসৃষ্ট 

  • নদীর মাঝখানে আড়াআড়ি বাঁধ নির্মাণ করে নদীর গতি রুখতে চেষ্ট করার ফলে পার্শ্ব প্রতিক্রিয়া হিসাবে ভাঙ্গন হয়ে থাকে।
  • ভাঙ্গনপ্রবণ এলাকায় নদীর পাড় বা জমি খানিকটা ছেড়ে দিয়ে অথবা নদীর পাড় থেকে অনেকটা ভিতরে গিয়ে ভাঙ্গন প্রতিরোধমূলক বা বন্যা নিয়ন্ত্রণ বাঁধ নির্মাণের কারণে নদী ভাঙ্গন হয়ে থাকে।
  • অপরিকল্পিত রাস্তা-ঘাট ও বাঁধ নির্মাণ করে মৌসুমী বর্ষার পানি নিস্কাশনে প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টির ফলে নদীতে পানির চাপ বাড়ে এবং ভাঙ্গনের তীব্রতা বৃদ্ধি পায়।
  • মানুষ কর্তৃক কৃত্রিম উপায়ে অযৌক্তিকভাবে নদীর গতিপথ পরিবর্তনের চেষ্টার ফলস্বরূপ নদী ভাঙ্গন হয়ে থাকে।
  • শহর রক্ষার উদ্দেশ্যে নদীর এক পাড়ে উঁচু বাঁধ নির্মাণ করে ভাঙ্গন প্রতিরোধমূলক ব্যবস্থা গ্রহণের ফলে অপর পাড়ে ভাঙ্গন সৃষ্টি হয়।
  • নদীর উৎস মুখে প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি করে হঠাৎ হঠাৎ অতিরিক্ত পানি ছেড়ে দেয়ার ফলে নদীর পাড়ে আকস্মিক ভাঙ্গন হয়ে থাকে।
  • স্লুইস গেট নির্মান করে পানি নিয়ন্ত্রণের নামে পানি আটকে দেয়ার ফলে পানির চাপ বৃদ্ধির কারণে নদীর পাড়ে ভাঙ্গন হয়ে থাকে।
  • চর-ভূমির গাছ ও কাঁশ বন নিধনের ফলে চরের পাশ দিয়ে ভাঙ্গন হয়ে থাকে।
  • ফেরী বা জাহাজ চলাচলের কারণেও অনেক সময় নদী ভাঙ্গন হয়।
  • অযৌক্তিক ড্রেজিং বা নদী খননের ফলেও নদী ভাঙ্গন হয়ে থাকে।
7River Erosion.jpg  10River Erosion.jpg
ছবির টাইটেল: নদীতে  বাঁধ দেওয়ার ফলে ভাঙ্গন  ছবির টাইটেল: স্লুইস গেট
8River Erosion.jpg  11River Erosion.jpg

ছবির টাইটেল: একটি অপরিকল্পিত বাঁধ

 ছবির টাইটেল: নদীতে জাহাজ ও ফেরী চলছে

 9River Erosion.jpg  
 ছবির টাইটেল: নদীর এক পাড়ে শহর রক্ষা বাঁধ  
   

 

সমাজ জীবনে নদী ভাঙ্গনের ফলাফল

 

  • নদী ভাঙ্গন বেকারত্ব ও দারিদ্রতার প্রসার ঘটায়।
  • নদী ভাঙ্গনের ফলে ভূমিহীনতা বৃদ্ধি পায়।
  • ক্ষতিগ্রস্ত মানুষ অভাবের তাড়নায়, ষড়যন্ত্রমূলক প্ররোচনায় কিংবা অন্যের চাপের মুখে অবশিষ্ট জমি-জমা, গবাদি-পশু এবং অন্যান্য মূল্যবান সামগ্রী হাতছাড়া করে ফেলে।
  • অনেক পরিবার/মানুষ অতি মাত্রায় ঋণগ্রস্ত হয়ে পড়ে।
  • ক্ষতিগ্রস্ত মানুষ নিরাপত্তাহীন পরিস্থিতিতে পতিত হয়।
  • খাবার পানি ও পয়ঃ পরিচ্ছন্নতার তীব্র সংকট দেখা দেয়।
  • নারীদের ব্যক্তিগত বা দৈহিক নিরাপত্তাহীনতা সৃষ্টি হয় এবং নারী নির্যাতন বৃদ্ধি পায়।
  • বহুসংখ্যক লোক কর্মসংস্থান লাভের বা বেঁচে থাকার আশায় এলাকা ত্যাগ করে শহর বা অন্য কোন স্থানে অস্থায়ী বা স্থায়ীভাবে স্থানান্তরিত হয়ে চলে যায়।
  • বৃদ্ধ, নারী ও শিশূদের মাঝে ভিক্ষা বৃত্তির প্রসার ঘটে।
  • লেখা-পড়া বাঁধাপ্রাপ্ত হওয়া এবং স্কুল বন্ধ থাকার কারণে বহু ছেলে-মেয়ে একবার স্কুল ছেড়ে গেলে আর স্কুলে ফিরে আসতে পারে না, ফলে জনসংখ্যায় অশিক্ষিতের হার বেড়ে যায়।
  • শত শত বা হাজার হাজার মানুষ বাঁধ বা শহরের বস্তিতে অস্বাস্থ্যকর পরিবেশে মানবেতর জীবন যাপনে বাধ্য হয়।
  • নদী ভাঙ্গনে ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারের শিশুরা বাঁধ বা বস্তির জীবনে প্রতিকূল পরিবেশ ও অনাকাঙ্খিত পারিপার্শ্বিকতার মাঝে নিক্ষিপ্ত হয়।
  • গণ-দারিদ্র ব্যাপকভাবে পুষ্টিহীনতার প্রসার ঘটায়।
  • শিশু শ্রম ও শিশু নির্যাতন বৃদ্ধি পায়।
  • নারী ও শিশু অপহরণ ও পাচার বৃদ্ধি পায়।
  • কিশোর অপরাধ বৃদ্ধি পায়।
  • স্বামী-স্ত্রীর মাঝে বিচ্ছেদ সহ নানা ভাবে পারিবারিক সম্পর্ক বা বন্ধন ক্ষতিগ্রস্ত হয়।
  • বাঁধ, বস্তি বা অন্যান্য স্থানের অস্বাভাবিক পরিবেশের প্রভাবে, নদী ভাঙ্গনে দুর্গত নারী ও কিশোরীরা প্রকাশ্য বা গোপন পতিতাবৃত্তির শিকার হয়।
  • চুরি, ছিনতাই, রাহাজানি, ডাকাতি, প্রভৃতি অপরাধ বৃদ্ধি পায়।
  • নদী ভাঙ্গনে ক্ষতিগ্রস্ত লোকজনের সামাজিক অবস্তানের চরম অবনতি ঘটে।
  • বিবাহ বিচ্ছেদ, স্বামী বা স্ত্রী কর্তৃক পরিবার পরিজন পরিত্যাগ, বহু বিবাহ ইত্যাদি নেতিবাচক ঘটনা বৃদ্ধি পায়।
  • পরিবারের সদস্যদের মাঝে পারস্পরিক সম্পর্ক ও সহমর্মীতা শিথিল হয়ে পড়ে।
  • নদীতে ভেঙ্গে যাওয়া জমি জেগে উঠলে তা দখলের প্রতিযোগিতায় লড়াই, সন্ত্রস এবং মামলা-মোকদ্দমা বৃদ্ধি পায়।
  • নদী ভাঙ্গনে আন্তর্জাতিক সীমানা পরিবর্তনের ফলে সীমান্তবর্তী এলাকায় বসবাসকারী জনগোষ্ঠী বৈষয়িকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হয়।
  • ক্ষতিগ্রস্থ জনসাধারণের মাঝে আশ্রয়হীনতা বৃদ্ধি পায়।
  • চলমান ভাঙ্গন প্রক্রিয়ায় বাঁধ ও বস্তিতে মানবেতর জীবনের প্রসার ঘটতেই থাকে।
  • স্থানীয় অর্থনীতিতে মন্দাগ্রস্থতা সৃষ্টি হয়।
  • দেশের সার্বিক উৎপাদনশীলতা ক্ষতিগ্রস্ত হয়।
  • দেশের সার্বিক পরিবেশ ও প্রতিবেশের উপর মারাত্মক নেতিবাচক প্রভাব পড়ে।
12River Erosion.jpg 15River Erosion.jpg

ছবির টাইটেল: নদী ভাঙ্গনের

শিকার মানুষ ছুটছে শহরে

ছবির টাইটেল: নদী ভাঙ্গনের শিকার মানুষ অন্যত্র চলে যাচ্ছে
13River Erosion.jpg  16River Erosion.jpg

ছবির টাইটেল: নদী ভাঙ্গনে

সর্বস্ব হারানো মানুষ

 ছবির টাইটেল: নদী ভাঙ্গনের জন্য বাড়ছে ভিক্ষাবৃত্তি
14River Erosion.jpg  17River Erosion.jpg

ছবির টাইটেল: নদী ভাঙ্গনের

শিকার মানুষ ঋণগ্রস্থ হয়ে পড়ছে

 ছবির টাইটেল: নদী ভাঙ্গনের

জন্য বাড়ছে ভিক্ষাবৃত্তি

18River Erosion.jpg 19River Erosion.jpg

ছবির টাইটেল: নদী ভাঙ্গনের শিকার

মানুষ অস্বাস্থ্যকর ও নোংরা পরিবেশে বাস করছে

ছবির টাইটেল: শিশু শ্রম ও শিশু নির্যাতন
20River Erosion.jpg 21River Erosion.jpg
ছবির টাইটেল: পারিবারিক কলহ ছবির টাইটেল: নদী ভাঙ্গনের ফলে পতিতাবৃত্তি বৃদ্ধি
22River Erosion.jpg 23River Erosion.jpg
ছবির টাইটেল: জমি দখল ছবির টাইটেল: আশ্রয়হীন মানুষ
24River Erosion.jpg  
ছবির টাইটেল: বস্তিতে মানুষের ভীড়  
   

 

 

সম্ভাব্য নদীভাঙ্গন মোকাবেলায় প্রস্ত্ততিসমূহ

  • পার্শ্ববর্তী নদীর পানিপ্রবাহ বৃদ্ধির দিকে বিশেষ নজর দিতে হবে
  • স্বেচ্ছাসেবক দলের মাধ্যমে রাতে ও দিনে পালাক্রমে নদীভাঙ্গনের অবস্থা পর্যবেক্ষণ করতে হবে
  • নদীর পারে ফলজ ,বনজ, ও মাটির ক্ষয়রোধকারী গাছ লাগাতে হবে ।
  • অপরিকল্পিত নির্মানকাজ বন্ধ করতে হবে ।
  • নদীর কিনারে ফেরি ও জাহাজের গতি নিয়ঢন্ত্রন রাখতে হবে
  • নদীর পাড়ে বসতবাড়ি তৈরি করলে সহজে সরানো যায় এরকম বাড়ি তৈরী করতে হবে ।  

 

নদী ভাঙ্গন সম্পর্কে যা জানা দরকার

 

  • নিজস্ব এলাকার নদী ভাঙ্গনের ইতিহাস সম্পর্কে জেনে রাখতে হবে।
  • আপনার এলাকায় নদী ভাঙ্গনের পরিমাণ ও ব্যাপকতা কেমন সে সম্পর্কে জেনে রাখতে হবে ।
  • আপনার এলাকায় নদী ভাঙ্গনের কারণ সম্পর্কে জেনে রাখতে হবে।
  • আপনার এলাকায় নদী ভাঙ্গনের তীব্রতা ও ব্যাপকতা বাড়তে পারে কি না সে বিষয়ে জেনে রাখতে হবে।
  • আপনার এলাকায় নদী ভাঙ্গন কতদূর পর্যন্ত বিস্তৃত এবং কতদিন পর্যন্ত চলতে পারে সে সর্ম্পকে জেনে রাখতে হবে
  • আপনার এলাকায় নদী ভাঙ্গনের গতি-প্রকৃতি সম্পর্কে আরও বিশদভাবে জেনে রাখতে হবে।
25River Erosion.jpg
ছবির টাইটেল: নদী ভাঙ্গনে বেকার হয়ে যাওয়া মানুষ
   

  

 

পরামর্শের জন্য যোগাযোগঃ 

দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা কমিটি (স্থানীয় ইউনিয়ন পরিষদ, উপজেলা পরিষদ, জেলা পরিষদ)

অথবা

দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা অধিদপ্তর, খাদ্য ও দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা মন্ত্রানালয়, দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রান ভবন (৪র্থ তলা), ৯২-৯৩ মহাখালী বা/এ , ঢাকা -১২১২, ফোন: ০২৮৮৫৯৬৩৭ , dmb@btcl.net.bd

 

তথ্য সংগ্রহ  

১.রহমান , মুহাম্মদ সাইদুর , দূর্যোগকোষ , ২০০৯, সার্বিক দূর্যোগ ব্যবস্থাপনা কর্মসূচী (সিডিএমপি) , ৯২-৯৩ মহাখালী , ঢাকা -১২১২ ।      

২.কাফী , শরীফ এ, নদী ভাঙ্গনের ক্ষয়ক্ষতি হ্রাসে জনগন কি কি ব্যবস্থা নিতে পারে, ১৯৯৩, প্যাক্ট-বাংলাদেশ / প্রিপ, বাড়ী-৫৬, রোড-১৬, ধানমন্ডি আ/এ , ঢাকা, বাংলাদে।

ছবি


সংযুক্তি


সংযুক্তি (একাধিক)



Share with :

Facebook Twitter